Saturday, January 31, 2015

"Press Release from PROTIK THEATER "



Majid, Peelkhana

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি নাগরিক অধিকার সংগঠনের মানববন্ধন ঢাকার রেজিস্ট্রেশন কমপ্লেক্সে জনহয়রানি বন্ধ এবং দুর্নীতিবাজ সাব-রেজিস্ট্রারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি

ঢাকার রেজিষ্ট্রেশন কমপ্লেক্সের বিভিন্ন সাব-রেজিষ্ট্রী অফিসের
অনিয়ম-দুর্নীতি ও দলিল করার সময় হয়রানি বন্ধের দাবি জানিয়েছে নাগরিক
অধিকার বিষয়ক বিভিন্ন সংগঠন। আজ সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত
মানববন্ধনে ঢাকার খিলগাঁও এর সাব রেজিস্ট্রার জাহিদ হোসেন, সুত্রাপুরের
সাব রেজিস্ট্রার সৈয়দ নজরুল ইসলাম, আশুলিয়াসহ ঢাকা রেজিষ্ট্রেশন
কমপ্লেক্সের অন্যান্য সাব-রেজিষ্ট্রারদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন পত্রিকায়
প্রকাশিত অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ খতিয়ে দেখতে দুদক ও আইন মন্ত্রনালয়ের
প্রতি দাবি জানিয়েছেন বক্তারা।
বেসরকারি সংস্থা মিডিয়া ফোরাম ফর হিউম্যান রাইটস এন্ড এনভায়নমেন্টাল
ডেভেলপমেন্ট (মেড) ও সিটিজেন রাইটস মুভমেন্ট আয়োজিত মানববন্ধনে  বক্তারা
বলেন, জমি দলিল করতে গিয়ে হয়রানির ঘটনা নিয়ে বিভিন্ন সময়ে পত্রপত্রিকায়
সংবাদ প্রকাশিত হলেও এ ব্যাপারে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ তেমন একটা
গ্রহন না করার কারনে সাব-রেজিস্ট্রি অফিস গুলোতে অনিয়ম দুর্নীতি বেড়েই
চলেছে। সাব-রেজিষ্ট্রারদের দুর্নীতির কারনে একদিকে যেমন সরকার রাজস্ব
ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে অন্যদিকে হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে গ্রাহকদের। সম্প্রতি
ú্রতি দৈনিক কালের কন্ঠ, সমকাল, ইনকিলাব, সকালের খবর ও মানবকন্ঠসহ
বিভিন্ন পত্রিকায় সাব-রেজিষ্ট্রারদের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশিত হলেও কোন
ব্যবস্থা নেয়ার খবর পাওয়া যায়নি। পত্রিকায় ঢাকা রেজিস্ট্রেশন কমপ্লেক্সের
 মোহাম্মদপুর, সুত্রাপুর, তেজগাও, আশুলিয়া, গাজিপুরের শ্রীপুর,
চট্টগ্রামের টেকনাফ, হাটহাজারি ও পটিয়ার সাব-রেজিষ্ট্রার এবং মানিকগঞ্জের
ঘিওরের সাবরেজিষ্ট্রারসহ বেশ কয়েক জনের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির
অভিযোগের সংবাদ প্রকাশিত হলেও মন্ত্রনালয় বা আইজিআর অফিসের পক্ষ থেকে এ
বিষয়ে তদন্তের উদ্যোগ গ্রহনের কোন খবর প্রকাশিত না হওয়ায় জনমনে উদ্বেগ
বেড়েছে।
কর্মসুচিতে বক্তব্য রাখেন মেড এর নির্বাহী চেয়ারম্যান প্রকৌশলী শহিদুল
ইসলাম, সিটিজেনস রাইটস মুভমেন্টের মহাসচিব তুসার রেহমান, মেড এর নির্বাহী
পরিচালক রফিকুল ইসলাম সবুজ, উন্নয়ন সাংবাদিক ফোরামের সদস্য শহিদুল ইসলাম
প্রমুখ।

বার্তা প্রেরক

রফিকুল ইসলাম সবুজ
নির্বাহী পরিচালক, মেড

"ACTION OVER CONTINUOUS BLOCKADE After power, cable, internet also snapped at BNP Chairperson Khaleda’s office"










ACTION OVER CONTINUOUS BLOCKADE

After power, cable, internet also snapped at Khaleda’s office



Seven hours into the disconnection of power supply, the authorities severed internet and cable connections to BNP Chairperson Khaleda Zia’s Gulshan office in Dhaka this morning.
The office staff found the cable network snapped when they turned on the TV around 9:00am, said Shamsuddin Didar, a staff of BNP chairperson's media wing.
The internet connection was also severed since that time, Didar told The Daily Star.
During the early hours of today, Dhaka Electric Supply Company Limited (Desco) stopped power supply to Khaleda‘s office.
After stopping the power supply, Moksed Ali, a lineman of Desco, told reporters that he cut BNP chief’s political office’s power line at around 2:42am on instruction from top authorities of Gulshan police. Moksed declined to elaborate further.
Around 4:00am, staff at the office started a generator, Shamsuddin Didar, a staff of BNP chairperson’s media wing, told The Daily Star.
The actions came 11 hours after Shipping Minister Shajahan Khan threatened that water and electricity lines of Khaleda’s office will be disconnected if she did not withdraw blockade by February 2.
On information, reporters rushed to Khaleda’s office and saw total darkness at Khaleda’s Gulshan office where she has been staying since January 3.
A number of police vans, sand, bricks, cement carrying trucks, a water cannon and additional number of police were deployed in front of Khaleda’s office since January 3 midnight in a bid to confine her there.
Police however removed all the barriers and withdrew additional law enforcers on January 18. Khaleda however opted to remain at her office.

Wednesday, January 28, 2015

"Press Release from National Labour Party-NLP আগুনে মানুষ পোড়ানোর অপ-রাজনীতি থেকে দেশবাসীকে মুক্তি দিতে অবিলম্বে সকল দলের অংশগ্রহণের ভিত্তিতে অর্থবহ সংলাপের ডাক দিন-মাহমুদুর রহমান মান্না"`

আগুনে মানুষ পোড়ানোর অপ-রাজনীতি থেকে দেশবাসীকে মুক্তি দিতে অবিলম্বে সকল দলের অংশগ্রহণের ভিত্তিতে অর্থবহ সংলাপের ডাক দিন-মাহমুদুর রহমান মান্না

আজ ২৮ জানুয়ারী ২০১৫ বুধবার সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে “আগুনে মানুষ পোড়ানোর অপ-রাজনীতি থেকে দেশবাসীকে মুক্তি দিতে অবিলম্বে সকল দলের অংশগ্রহণের ভিত্তিতে অর্থবহ সংলাপের দাবীতে প্রতীকি অনশন” অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত প্রতীকি অনশনে ন্যাশনাল লেবার পার্টি-এনএলপি’র চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ জিয়া’র সভাপতিত্বে  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সাবেক ডাকসুর ভিপি ও নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকেন বাংলাদেশ ইনসাফ পার্টি-বিআইপি চেয়ারম্যান শহীদ চৌধুরী।

দেশের চলমান সংঘাত থেকে দেশবাসীকে মুক্তি দিতে তৃতীয় রাজনৈতিক জোটের পথিকৃৎ নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ৫ জানুয়ারীতে কার্যত কোন নির্বাচন হয় নি। ১৫৩ টি আসনে নির্বাচনের কোন প্রার্থী না থাকায় সেদিন কোন নির্বাচন হয় নি। দুই নেত্রীকে দেশের মানুষ পোড়ানোর অপরাজনীতি থেকে রেহাই দিতে হবে। অন্যথায় দেশের মানুষ ক্ষেপে গেলে আপনাদের আর রক্ষে থাকবে না। আগুনে মানুষ পোড়ানোর অপ-রাজনীতি থেকে দেশবাসীকে মুক্তি দিতে অবিলম্বে সকল দলের অংশগ্রহণের ভিত্তিতে অর্থবহ সংলাপের ডাক দিন এবং সকল সমস্যার সমাধান করুন।
তিনি প্রতীকি অনশনের আয়োজক সংগঠন ন্যাশনাল লেবার পার্টি-এনএলপি’কে ধন্যবাদ জানান।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ইনসাফ পার্টি’র চেয়ারম্যান শহীদ চৌধুরী বলেন, দুই নেত্রীর দিনশেষ তৃতীয় শক্তির বাংলাদেশ। আর তৃতীয় ক্তির বাংলাদেশ মানেই ইনসাফ পার্টিও বাংলাদেশ। মাহমুদুর রহমান মান্নার নেতৃত্ত্বাধীন তৃতীয় শক্তির সাথে আমরা আছি এবং থাকব।
সভাপতির বক্তব্যে এনএলপি চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ জিয়া বলেন, দেশে আজ কোন রাজনীতি নেই। দেশে আছে শুধুই মানুষ পোড়ানোর নৃশংস ও নৈরাজ্যকর অপরাজনীতি। এ অবস্থায় দেশের মানুষ বাঁচতে পারে না। তাই অবিলম্বে সকল দলের প্রতিনিধিদেও সমন্বয়ে দুই নেত্রীকে এক টেবিলে বসে চলমান সমস্যার সমাধান করতে হবে। অন্যথায় দেশের মানুষ যেভাবে ফুঁসে উঠতে শুরু করেছে সেক্ষেত্রে যেকোন নতুন পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে তার দায়ভার দুই নেত্রীকেই নিতে হবে। আইলা ও সিডর তত্বের পাশাপাশি পেট্রোল বোমা তত্বের অবসানে সেনাবাহিনী দরকার। কেননা একমাত্র সেনাবাহিনীই আইলা ও সিডরের চাইতেও মহা দুর্যোগের নাম পেট্রোল বোমাতঙ্ক থেকে দেশের মানুষের মাঝে শান্তি ও দেশের শৃংখলা ফিরিয়ে আনতে পারে। দেশের বিপর্যস্থ অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে জাতীয় দায়িত্ব পালন করার সুযোগ যেন হেলা না করে সে বিষয়ে সচেষ্ট হতে দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনীকে তিনি এ সমস্যা সমাধানে আহবান জানান। নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নার নেতৃত্বে গঠিত তৃতীয় শক্তির সাথে আগামী দিনের রাজনীতিতে এনএলপি রাজপথের আন্দোলনে এক ও অভিন্ন হয়ে কাজ করে যাবে।

অনশন’কে সফল করতে আরো বক্তব্য রাখেন ন্যাশনাল লেবার পার্টি-এনএলপি’র সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ শিহাব উদ্দিন, ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসাইন ঢালু, মোঃ জামান, মোঃ মোবারক হোসেন, আইন বিষয়ক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা এড. শেখ মোঃ হারুন উর রশিদ, মহাসচিব আরিফুল ইসলাম কাকন, ত্রাণ ও পুর্নবাসন সম্পাদক মোঃ উজ্জল হোসেন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ শফিকুল ইসলাম, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা মোতাসিম বিল্লাহ, সহ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আবদুল কুদ্দুস আনসারী, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক দেওয়ান সোহাগ, সহ ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক আহমেদ মামুন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আবদুল হালিম হিম, সহ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জয়নাল আবেদিন বাবু, সহ মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা মোছাঃ নার্গিস বেগমসহ প্রমুখ ।
 বার্তা প্রেরক
 আবদুল হালিম হিম
প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক
কেন্দ্রিয় নির্বাহী কমিটি

"Rally of Socialist Student Front"



Majid, Peelkhana

" শওকত মাহমুদকে মিথ্যা মামলা দিয়ে গণমাধ্যম দমন করার চক্রান্ত সফল হবে না - এম.এ. আজিজ- মহা-সচিব, ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন"



Majid, Peelkhana

Tuesday, January 27, 2015

"Thousands of people joined the funeral prayers of Arafat Rahman, the youngest son of the Bangladesh Nationalist Party chairperson Khaleda Zia"


Arafat Rahman, the youngest son of the Bangladesh Nationalist Party chairperson Khaleda Zia and former president Ziaur Rahman, laid to rest at  Banani graveyard in the evening after funeral prayers at Baitul Mukarram mosque in the capital.
Thousands of people joined the funeral prayers in and around the mosque and accompanied the coffin on its way to Banani.


Monday, January 26, 2015

"Press Release From Jatiyo Somaztantrik Dol / জাসদ"








জাসদ সাধারণ সম্পাদক শরীফ নূরুল আম্বিয়া বলেন, আগুন দিয়ে নিরীহ মানুষ হত্যা করার জন্য খালেদা জিয়া ও তারেক জিয়াকে অনেক মূল্য দিতে হবে। অবরোধের নামে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মানুষ হত্যা-সহিংসতা-নাশকতা-নিষ্ঠুরতা চলতে দেয়া যায়না। চলমান সন্ত্রাসে জনগণ ভীত নয় বরং জনগণ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে সংগঠিত হচ্ছে। সংগঠিত জনগণের জনরোষে জামাত-বিএনপির বোমাবাজ  সন্ত্রাসীরা অচিরেই নির্মূল হয়ে যাবে। দেশ শান্তি ও গণতন্ত্রের ধারায় অগ্রসর হবে। ৪৩ বছরের বাঙ্গালি জাতি এখন অনেক পরিণত। সমস্যার সমাধান সাংবিধানিক ভাবেই করতে হবে। সংবিধান বহির্ভূত যেকোন ষড়যন্ত্র জনগণ রুখে দিবে। তিনি, সংবিধান রক্ষায় গণতন্ত্রে বিশ্বাসী সকল শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান। জনসভায় আরো বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ঢাকা মহানগর সাধারণ সম্পাদক এবং মাননীয় ত্রান ও দূর্যোগ ব্যাবস্থাপনা মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম এমপি, জাতীয় শ্রমিক জোট বাংলাদেশ সভাপতি ও জাসদ স্থায়ী কমিটির সদস্য শিরীন আখতার এমপি, জাতীয় নারী জোটের আহবায়ক আফরোজা হক রীনা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবীর নানক, জাসদের যুগ্মসম্পাদক হাবিবুর রহমান শওকত,  সাংগঠনিক সম্পাদক ওবায়দুর রহমান চুন্নু, করিম সিকদার, শওকত রায়হান, নইমূল আহসান জুয়েল, নূরুল আখতার, জাসদ নেতা শফিউদ্দিন মোল্লা, শহিদুল ইসলাম, নাদের চৌধুরী, মাইনুর রহমান, ইদ্রিস আলী, ঢাকা মহানগর আওয়ামীগের শাহ আলম মুরাদ, ফয়েজুদ্দিন মিয়া, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির ঢাকা নগর সভাপতি আবুল হোসেন, গণতন্ত্রী পার্টির নেতা ডঃ শাহাদাত হোসেন, কমল ঘোষ, গণ আজাদী লীগের আতাউল্লাহ খান, জাতীয় যুব জোটের সভাপতি রোকনুজ্জামান রোকন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি সামছুল ইসলামসহ জাসদ ও ১৪ দলের নেতৃবৃন্দ।

বার্তা প্রেরক
আনোয়ারুল ইসলাম

"Press Release from বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি/আন্দোলনের নামে মানুষ হত্যা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পরিপন্থী ......মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক এমপি"



মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আলহাজ্ব এডভোকেট আ.ক.ম মোজাম্মেল হক এম.পি বলেছেন, আন্দোলনের নামে মানুষ হত্যা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পরিপন্থী। তিনি বলেন মানবিক মর্যদা, সাম্য, সুশাসন হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের মূলভিত্তি। ২৬ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের উদ্যোগে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়নে করণীয়’ শীর্ষক মতবিনিময় ও মৃত্যুঞ্জয়ী স্মরণিকার মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা অভিন্ন ও অবিচ্ছেদ্য। বতমান সরকার বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠ কন্যা দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সর্বস্তরে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কাজ করছে। যার ফলে দেশে অর্থনীতি ও সামাজিক অগ্রগতি এগিয়ে চলেছে। বর্তমান প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত করার লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদ প্রসংশনীয় কাজ করে আসছে। বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের সভাপতি লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য কবি কাজী রোজী ও প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মিজানুর রহমান। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক আরো বলেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের মাধ্যমে দেশে গণতন্ত্র রক্ষা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃতে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক মহলে দেশের ভাবমূর্তি ও মর্যাদা উন্নত হয়েছে। বর্তমান সরকারের গতিশীল কার্যক্রম অব্যাহত থাকলে ২০২১ সালের পূর্বেই বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের ও ২০৪০ সালের মধ্যে উন্নত ধনী দেশের পরিণত হবে। তিনি বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের কার্যক্রমের প্রশংসা করে বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও তাঁর সম্পর্কে জানতে গবেষণা প্রয়োজন। বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদ এই লক্ষ্যে কাজ করছে। বঙ্গবন্ধুর সম্পর্কে অনেক অজানা ও মূল্যবান তথ্য বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের নিরলস চেষ্টায় পাওয়া সম্ভব বলে তিনি প্রত্যাশা করেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য কবি কাজী রোজী বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন করতে তরুন সমাজকে এগিয়ে আসতে হবে। তিনি তরুন সমাজকে লেখাপড়ার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর সর্ম্পকে জানার আহŸান জানিয়েছেন। প্রধান আলোচকের বক্তব্যে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির জন্যে সর্বস্তরে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন করা প্রয়োজন। সভাপতির বক্তব্যে লায়ন মোঃ গনি  মিয়া  বাবুল বলেন, সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ গড়তে ও জনগণের স্বার্থ রক্ষায় সকলকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে কাজ করতে হবে।

বার্তা প্রেরক

(মোঃ আব্দুর রাজ্জাক)
দপ্তর সম্পাদক
বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদ
কেন্দ্রীয় কমিটি

"Press Release from Bangladesh Minority Watch (BDMW)."

Minority Hindu Woman raped by fraudulent means by Local U.P Chairman without any martial tie at Savar Upazila- Dhaka.  Fact Finding Report of Bangladesh Minority Watch (BDMW).  DATE OF EVENT  23.12.2014 & 15.01.2015 at about 7.30 p.m.

Country : Bangladesh
Nature of crime :  Rape of Women
Act     : Personal integrity
Name of the victim:  Ms.Nupur Goswami (28)
Name of the Father :Madhab Chakravorty .
Name of the mother:Ms.Nomita Chakravorty
Religion of the victim: Hindu
Ethnicity of the victim: Religious Minority
Consent of victims taken :  Yes
Date of incident       : 23.12.2014  at about 11 p.m.& 15.01.2015 at about 11 pm.
Date of investigation : 23rd of January,2015 and 24th of January,15
Place of occurrence: Hoque Villa(ground floor)last side of Madrasha Masjid-Bank Colony Savar Municipality within Dhaka District.
 Name of the perpetrator: Md. Hafizur Rahman Sohrab (45) son of Taru Meah  Local UP Chairman, Address : Suapur Union Parishad-Dhamrai Upazila of Dhaka District.
Religion of the perpetrators: Muslim.
Name of the investigator:  Adv.Rabindra Ghosh, Arun Majumder & Rabindra Nath Baral of BDMW.
Permanent Address of  victim:   Village : Betuail P.S.Dhamrai, District- Dhaka,  Bangladesh.
Present Address  : Hoque Villa (ground floor) Last part of Madrasha Goli Bank Colony-Savar PS- Dhaka district.
Date of submission : 24th January-2015
Contact person of GHRD : Ms. Nazli Tuncay,
Case Number : Savar P.S. Case No.22 dated 19.01.2015 under section 9(1) of Woman and children Repression Act,2003 (Amended)
Facts in Brief:
 On 23.12.2014 at about 11 at night  Hafizur Rahman went to rented- house of victim, knocked the door, as soon as the door is opened perpetrator caught hold of victim, forcefully opened wearing clothes and started to rape on the bed despite resistance made by her and he left her home abandoned threatening her not publicize thereby cheated her to become her husband.  The victim finding no other alternative went to the house of Hafizur Rahman Sohrab asking for legal marriage as she lost chastity due to sexual intercourse but on the contrary she was then physically assaulted and kicked her to leave the house. Thereafter she lodged first information report (F.I.R.) at Savar Sadar Police station against the perpetrator-Chairman on 19.01.2015.
Investigation :
I, Adv. Rabindra Ghosh along with Rabindra Nath Baral and Arun Majumdar of BDMW rushed to the place of occurrence on 23.01.2015 at about 3 p.m. visited the spot, police station, met with Officer in Charge and the Investigating officer of the respective case. We also went to see the victim but at that time the victim was disappearing because of threat made by perpetrator-Chairman. We also went to the house of perpetrator who was arrested on 19.1.2015 by police, but we found Ms.Shelina Rahman (40) wife of Hafizur Rahman denied any involvement of her husband with rape scenario. We also found witnesses examined present witness namely 1) Mollah Abul Hossain, 2) Billal Hossain, 3) Md. Abbas Ali Khan, 4) Md. Dulal, 5) Md. Mazibur Rahman, 6) Ms.Selina Rahman, 7) Hajee Abdur Razzak (55) Owner of the Building (Mobile No. 01743889898) Some of the witnesses present in the house of perpetrator was canvassing that the victim was a bad and prostitute lady. But those witnesses could not make us understand providing any evidence how victim became prostitute. We also went to a destination where the victim was absconding for fear of life, we met with her and she narrated the story as follows :
" Since long after my legal marriage with Hindu husband perpetrator- Md.Hafizur  Rahman was eve-teasing me for sexual desire, he without any martial relationship fraudulently kept sexual tie, induced me to have sexual intercourse by personating my husband committed rape several times without any valid documents, I have one children aged about 7 years, Md.Hafizur is  greedy person and debauchee who had been influencing me showing his position as Chairman of the Union Council raped me several times without my consent. I could not disclose his nasty habit as I along with my Hindu husband was threatened by him for life, Lastly on 23.12.2014 Md.Hafizur brought a non-judicial stamp and compelled my husband to put signature on blank stamp paper created a fraudulent papers for divorce which was not at all done with my consent. Now I have been shelter less, homeless and destitute soon after Md.Hafizur refuses to marry me physically assaulting in his house - I need your legal assistance for protection of my right to life and right to integrity, right to food"
Action Taken :
BDMW soon after hearing incident of sexual assault communicated with local police to take cognizance as per law however police took cognizance after lapse of 26 days on 19.01.2015. BDMW advised the law enforcing Sub Inspector of Police to examine victim as per law and to give adequate medical assistance; we also met with victim and how she abandoned her Hindu husband. She stated with sorrows that she was totally miss-represented by local chairman and he became helpless rendering her in a great distress. BDMW also wanted to help this women legally and she gladly accepted our desire. We arranged a shelter home for her safety and security for the time being and asked her to wait till any response from any other quarters for help.  BDMW also arranged arrest of perpetrator on 19.01.15.  
Case Summary :
Ms. Nupur Goswami  Hindu woman was a Brahmin by caste lives at Suapur Union of Dhamrai Upazila of Dhaka District. Similarly the house of Md.Hafizur Rahman was half kilometres  In this opportunity powerful Chairman Hafizur most secretly made up a plan to capture this Hindu woman by alluring her bright future and started to keep physical relationship with the victim compelling her to abandon relationship with Hindu husband. Sexual relationship started since one year before, but cunning Md.Hafizur Rahman Shohrab (45) without any martial relationship fraudulently kept sexual tie, induced with Ms.Nupur Goswami to have sexual intercourse by personating her husband committed rape several times without any valid documents and thus committed crime against women and children under the law. Ms.Nupur lodged F.I.R. at local Savar Police station against Hafizur having been cheated and also physically assaulted by local Chairman. The victim was firstly neglected by her Hindu husband and secondly she was raped and physically assaulted by local U.P. Chairman rendering the life of this minority women in a unending miseries & disgraceful situation. Nether she is capable to go back to his previous Hindu husband nor she is entertainable in the Muslim society. Society now branded her as prostitute.

Recommendations :
BDMW is very much concerned about this incident of rape with dubious means on minority woman confining her in solitary room and we demand-

1)      Immediate protection of minority victim and her family members so that they can stay at their home without any hindrances.
2)      Local police should bring back the victim and her family members who were threatened by powerful perpetrators to live their home.
3)      The rights of women and children belonging to minorities should be protected.
4)      The minority victim should be given proper medical assistance to recover from traumatized position. Special care by the state should be ensured.
5)      Compensation to the victim should be paid by the State.
6)      The perpetrator should be brought to book as per law making scope to render the criminal to suffer maximum punishment.
7)      Bail of the perpetrators by Lower judiciary & High Court Division of Supreme Court of Bangladesh in such a heinous crime should not be encouraged.
8)     The Government of Bangladesh has also signed and ratified various international human rights instruments, such as Convention on the Elimination of all forms of Discrimination against Women (CEDAW) but in this case it was violated. Violation of ratified human rights instrument should not be entertained.
y10)     Chairman of Union Parishad is responsible post - He has been entrusted with responsibility to protect their citizen as per law, but the Chairman took law in his hand and committed crime against humanity and as such he is liable to be punished.

"বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) সভাপতি ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি শওকত মাহমুদকে বাসে পেট্রল বোমা হামলার মামলা ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ। Bangladesh Federal Journalist Union (BFUJ) and Dhaka Journalist Union (DUJ) Press Release"











বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) সভাপতি ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি শওকত মাহমুদকে বাসে পেট্রল বোমা হামলার মামলা ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ। 
সোমবার সকাল ১১টায় জাতীয় জাতীয় প্রেস ক্লাবের মাঠে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে সাংবাদিক নেতারা এ আহŸান জানান।
ডিইউজের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধানের সঞ্চালনায় এবং বিএফইউজের সহসভাপতি এম আবদুল­াহর সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিএফইউজের সাবেক সভাপতি ও সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের আহ¡ায়ক রুহুল আমিন গাজী, বিএফইউজের মহাসচিব এম এ আজিজ, ডিইউজের সভাপতি আবদুল হাই শিকদার, সাবেক সভাপতি আবদুস শহিদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ বাকের হোসাইন, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমদ, যুগ্ম সম্পাদক কাদের গণি চৌধুরী, ডিআরইউর সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান, সাংবাদিক নেতা মোঃ মোদাব্বের হোসেন, মোঃ শহিদুল ইসলাম, এ কে এম মহসীন, হারুন জামিল, মীর আহম্মদ মীরু, শহীদুল ইসলাম, শাহীন হাসনাত, আকন আবদুল মান্নান, জসিম উদ্দিন, খন্দকার আলমগীর, শাজাহান সাজু, খন্দকার গোলাম আজাদ, সাইমন কামালি, সাখাওয়াত ইবনে মঈন চৌধুরী, কামাল আহমদ, আয়াত উল­াহ, এইচ এস আলামিন  প্রমুখ। বক্তারা  অবিলম্বে উদ্দেশ্যমূলক এ মামলা থেকে শওকত মাহমুদের নাম প্রত্যাহারের জোর দাবি জানানমঙ্গলবার বিক্ষোভ সমাবেশবাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) সভাপতি ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি শওকত মাহমুদকে বাসে পেট্রল বোমা হামলার মামলা ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে প্রত্যাহারের দাবিতে মঙ্গলবার সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবে বিএফইউজে ও ডিইউজের উদ্যোগে এক বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে।  বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের মহাসচিব এম এ আজিজ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আবদুল হাই শিকদার ও সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধান সোমবার এক যুক্ত বিবৃতিতে বিক্ষোভ সমাবেশ সফলে সাংবাদিক সহকর্মী  বন্ধুদের প্রতি আহŸান জানিয়েছেন। 

Mr. Gofran
Bangladesh Federal Journalist Union(BFUJ) and Dhaka Journalist Union (DUJ)

Sunday, January 25, 2015

"Press Release from NLP"

আগুনে মানুষ পোড়ানোর অপ-রাজনীতি থেকে দেশবাসীকে মুক্তি দিতে অবিলম্বে সকল দলের অংশগ্রহণের ভিত্তিতে অর্থবহ সংলাপের দাবীতে প্রতীকি অনশনে সাংবাদিক ও ক্যামেরাম্যান প্রেরণ প্রসঙ্গে।


আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ

জনাব,
সম্মানিত বার্তা সম্পাদক/চীফ রিপোর্টার প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়া। আগামী ২৬ জানুয়ারী ২০১৫ সোমবার সকাল ১০ টা থেকে সন্ধা পর্যন্ত জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে “আগুনে মানুষ পোড়ানোর অপ-রাজনীতি থেকে দেশবাসীকে মুক্তি দিতে অবিলম্বে সকল দলের অংশগ্রহণের ভিত্তিতে অর্থবহ সংলাপের দাবীতে প্রতীকি অনশন” অনুষ্ঠিত হবে। উক্ত প্রতীকি অনশনে ন্যাশনাল লেবার পার্টি-এনএলপি’র চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ জিয়া’র সভাপতিত্বে  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, ঢাকা-১৭ আসনের এমপি এবং বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট-বিএনএফ’র প্রেসিডেন্ট এসএম আবুল কালাম আজাদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন,বিভিন্ন রাজনৈতিক  দলের নেতৃবৃন্দ।

অনশন’কে সফল করতে উপস্থিত থাকবেন ন্যাশনাল লেবার পার্টি-এনএলপি’র সর্বস্তরের নেতাকর্মীগণ।

উক্ত প্রতিকী অনশনের সংবাদ সংগ্রহ এবং চিত্র ধারণের জন্য আপনার বহুল প্রচারিত প্রিন্ট/ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিক ও ক্যামেরাম্যান পাঠিয়ে এ বিষয়ের সংবাদ প্রচারে ভূমিকা রাখতে আপনাদেরকে এনএলপি’র পক্ষ থেকে একান্ত অনুরোধ করছি।

বার্তা প্রেরক


আবদুল হালিম হিম
প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক
কেন্দ্রিয় নির্বাহী কমিটি

"Press Release from Jatiyo Somaztantrik Dol (JSD) "

বিষয়: আগামীকাল ২৬ জানুয়ারি ২০১৫ সোমবার বেলা ৩টায় ৩৫-৩৬ দলীয় কার্যালয়ের সামনে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক
দল-জাসদ ঢাকা মহানগর আহুত জামাত-বিএনপির অব্যাহত জ্বালাও-পোড়াও-মানুষ হত্যা-সন্ত্রাস-নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে

সংগ্রামী শুভেচ্ছা জানবেন। আগামীকাল ২৬ জানুয়ারি ২০১৫ সোমবার বেলা ৩টায় ৩৫-৩৬ দলীয় কার্যালয়ের সামনে জাতীয়
সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ ঢাকা মহানগর জামাত-বিএনপির অব্যাহত জ্বালাও-পোড়াও-মানুষ হত্যা-সন্ত্রাস-নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ
সমাবেশ করবে। প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করবেন জাসদ ঢাকা মহানগর সমন্বয়ক মীর হোসাইন আকতার। প্রতিবাদ সমাবেশে
জাসদ সভাপতি ও মাননীয় তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এমপি, ১৪ দলের সমন্বয়ক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও
মাননীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এমপি, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও মাননীয় বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন এমপি এবং জাসদ সাধারণ সম্পাদক শরীফ নূরুল আম্বিয়াসহ জাসদ ও ১৪ দলের কেন্দ্রীয় ও ঢাকা মহানগর নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখবেন।অনুগ্রহর্পূ্বক আগামীকাল আগামীকাল ২৬ জানুয়ারি ২০১৫ সোমবার বেলা ৩টায় ৩৫-৩৬ দলীয় কার্যালয়ের সামনে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ ঢাকা মহানগর আহুত জামাত-বিএনপির অব্যাহত জ্বালাও-পোড়াও-মানুষ হত্যা-সন্ত্রাস-নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশে আপনার বহুল প্রচারিত জাতীয় দৈনিক/টেলিভিশন চ্যানেল/বার্তা সংস্থার পক্ষ থেকে একজন প্রতিবেদক ও একজন আলোকচিত্র সাংবাদিক/ ক্যামেরা ক্রু পাঠিয়ে বাধিত করবেন। ধন্যবাদ।
পূর্ণ আন্তরিকতাসহ
দফতর সম্পাদক
আনোয়ারুল ইসলাম

"Press Release from The Mass People of Bangladesh Regarding Present Political Atmosphere of the State"




CASE FILED AGAINST JOURNALIST SHAWKAT MAHMUD, President of Bangladesh Federal Journalist Union (BFUJ), Dhaka Journalist Union (DUJ) and Adviser to the Chairperson of Begum Khaleda Zia of BNP



সূত্র ঃ  তারিখ ঃ ২৫/০১/২০১৫
শওকত মাহমুদের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যমূলকভাবে মামলা প্রত্যাহারেন জোর দাবি
বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি শওকত মাহমুদকে বাসে পেট্রল বোমা হামলার মামলায় উদ্দেশ্যমূলকভাবে জড়ানোয় বিস্ময় প্রকাশ করে  অবিলম্বে প্রত্যাহারের জোর দাবি জানিয়েছেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ।  
বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের মহাসচিব এম এ আজিজ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আবদুল হাই শিকদার ও সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধান রবিবার এক যুক্ত বিবৃতিতে ওই ঘটনার শওকত মাহমুদকে যুব্ক করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। নেই। এই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের উপযুক্ত শস্তি হোক, আমরা চাই। কিন্তু আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী প্রকৃত দোষীদের গ্রেফতার না করে শওকত মাহমুদের মত একজন মেধাবী সাংবাদিক ও সাংবাদিক  সমাজের প্রিয় নেতাকে এ মামলায় অন্তর্ভুক্ত করেছে।

জনাব শওকত সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনির হত্যার প্রতিবাদসহ গণমাধ্যমের স্বাধীনতা, মহ প্রকাশের স্বাধীনতা ও সাংবাদিকদের রুটি রুজির আন্দোলনে তিনি সব সময়ই সোচ্চার। টিভি টকশোতে তিনি এসব ব্যাপারে জোরালো বক্তব্য রেখে এসেছেন। আমরা মনে করি, তার কণ্ঠ স্তব্ধ করার জন্যই তাঁকে উদ্দেশ্যমূলকভাবে এ মামলায় জড়ানো হয়েছে।

আমরা অবিলম্বে এ মামলা থেকে শওকত মাহমুদের নাম প্রত্যাহার করার দাবি জানাচ্ছি। একই সঙ্গে গণমাধ্যম ও সাংবাদিকরা যাতে সুষ্ঠু, স্বাধীন ও নির্বিঘেœ তাদের পেশাগত দায়িত্ব পালন করে যেতে পারে তার পরিবেশ সুষ্টির জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান জানাচ্ছি।

প্রতিবাদ সমাবেশ

দৃষ্টি আকর্ষণ
সব প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক সংবাদ মাধ্যমের প্রধান বার্তা সম্পাদক/প্রধান প্রতিবেদক/ এসাইনমেন্ট এডিটর।
অনুরোধ
অনুগ্রহপূর্বক খবরটি প্রকাশ ও প্রচার এবং আগামীকালের মানববন্ধন কর্মসূচির খবর সংগ্রহের জন্য একজন প্রতিবেদক ও ফটোসাংবাদিক/ইএনজি ক্যামেরাম্যান পাঠানোর অনুরোধ জানাচ্ছি।

(জাহাঙ্গীর আলম প্রধান)
  সাধারণ সম্পাদক