Thursday, February 19, 2015

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপনে শহীদ মিনারে যাতায়াতের পথ সম্পর্কিত নির্দেশনা



মহান একুশে ফেব্রুয়ারী উপলক্ষে ১৯-০২-২০১৫ বেলা ১২টায় ডিএমপি’র মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। উক্ত সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপি কমিশনার মো: আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, একুশের প্রথম প্রহরে শহীদ মিনারে প্রথমে মহামান্য রাষ্ট্রপতি, তারপর প্রধানমন্ত্রী এবং বিরোধী দলীয় নেত্রী, জাতীয় সংসদের স্পিকার, পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী, শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। তারপরে যেকোন রাজনৈতিক দল ও সাংস্কৃতিক সংগঠন শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। তিনি জানান, একুশে ফেব্রুয়ারী যথাযথ ও সুশৃঙ্খলভাবে উদযাপন করার জন্য ২০ ফেব্রুয়ারী রাত ৭ টা হতে ২১ ফেব্রুয়ারী দুপুর ২টা পর্যন্ত জনসাধারনের ও সব ধরনের যানবাহনের চলাচলের উপর নিয়ন্ত্রন আরোপ করা হয়েছে। শহীদ দিবস ও আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস এর পবিত্রতা ও ভাবমূর্তি রক্ষায় সকলের সর্বাত্মক সহযোগিতা কামনা করছে ঢাকা মহাগনর পুলিশ ।
কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে যাওয়ার রাস্তা:
১। আজিমপুর গোরস্থানের মূল গেইট থেকে (গোরস্থানের দক্ষিণ পার্শ্বে) বের হয়ে আজিমপুর সড়ক, আজিমপুর বেবী আইসক্রীম মোড়, পলাশী ক্রসিং, এসএম হল এবং জগন্নাথ হলের সামনের রাস্তা দিয়ে সম্মানিত নাগরিকগণ শহীদ মিনারে যাবেন। কবরস্থানে যাওয়ার জন্য এ রাস্তা ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।
২। বকশী বাজার, চকবাজার, উর্দূ রোড, ঢাকেশ্বরী সড়ক, নাজিম উদ্দিন সড়ক, বাবুপুরা সড়ক এলাকার জনসাধারণ পুরাতন রেলওয়ে হাসপাতাল সড়ক, পলাশী ক্রসিং, এসএম হল এবং জগন্নাথ হলের সামনের রাস্তা দিয়ে শহীদ মিনারে যেতে পারবেন।
৩। আব্দুল গনি সড়ক, তোপখানা সড়ক, শহীদ ক্যাপ্টেন মনসুর আলী সরণী (পার্ক এভিনিউ) এলাকার যে সমস্ত জনসাধারণ গোরস্থানে না গিয়ে শহীদ মিনারে যেতে চান তারা হাইকোর্ট, দোয়েল চত্বর ক্রসিং, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, টিএসসি’র মোড়, নীলক্ষেত পুলিশ ফাঁড়ি, পলাশী ক্রসিং, এসএম হল এবং জগন্নাথ হলের সামনের রাস্তা দিয়ে শহীদ মিনারে যেতে পারবেন।
৪। যে সব ছাত্র-ছাত্রী ও জনসাধারণ রোকেয়া হল, সামসুন্নাহার হল এবং বিশ্ববিদ্যালয় এর কলাভবন এলাকা হতে সরাসরি শহীদ মিনারে নীলক্ষেত পুলিশ ফাঁড়ি, পলাশী ক্রসিং, এসএম হল এবং জগন্নাথ হলের সামনের রাস্তা দিয়ে শহীদ মিনারে যেতে পারবেন।
কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার হতে বের হওয়ার রাস্তা:
শহীদ মিনারে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের পর শুধুমাত্র ঢাকা মেডিকেল কলেজের সামনে দিয়ে অথবা দোয়েল চত্বর দিয়ে জনসাধারন বের হতে পারবেন।
যানবাহন চলাচল সম্পর্কিত নির্দেশাবলীঃ
উপরে বর্ণিত রাস্তা দিয়ে ২০ ফেব্রুয়ারি রাত ৭ টা হতে ২১ ফেব্রুয়ারি বেলা ২ টা পর্যন্ত সব ধরণের যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে।
শুধুমাত্র ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টিকার সম্বলিত যানবাহন যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতিক্রমে ঐ সময় উল্লেখিত রাস্তায় প্রবেশের সুযোগ পাবে।


মহাসচিবের চিঠির সম্মান জানানো উচিত ছিল


মহাসচিবের চিঠির সম্মান জানানো উচিত ছিল

চলমান সংকট নিরসনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন চিঠি দিয়েছেন। চিঠিতে সংকট সমাধানে সরকারকে সংলাপের উদ্যোগ নিতে আহ্বান জানানো হয়েছে। জাতিসংঘের সংলাপের আহ্বানকে নাকচ করে দিয়েছে সরকার। ক্ষমতাসীনদের এমন সিদ্ধান্তকে ভালোভাবে নেননি দেশের বিশিষ্টজনেরা। তাদের মতে, জাতিসংঘের সদস্য রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের সরকারকে দেয়া বান কি মুনের চিঠির প্রতি সম্মান দেখানো উচিত ছিল। জাতিসংঘের আহ্বানের পরও সরকার সংলাপের উদ্যোগ না নিলে দেশ আরও গভীর সংকটের দিকে যাবে বলে মন্তব্য করেন তারা। বুধবার বিশিষ্ট আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রফেসর ড. এমাজউদ্দিন আহমেদ ও সুজন সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার সহ বিশিষ্ট জনরা এ কথা বলেন।

Wednesday, February 18, 2015

"BANGLADESH MUKTIZODHDHA SHONGSHOD"


"রাজধানীর মিরপুর-১০ সকাল ৮টায় হরতাল সমর্থনে মিছিল করে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল।"



রাজধানীর মিরপুর-১০ সকাল ৮টায় হরতাল সমর্থনে মিছিল করে জাতীয়তাবাদী
ছাত্রদল। উক্ত মিছিলে নেতৃত্ব প্রদান করেন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল কেন্দ্রীয়
সংসদের সহ-সাংগঠনকি সম্পাদক শাহীনুর সাগর মিছিলে আর উপস্থিত ছিলেন  আছমা
আক্তার, নয়ন মনি ফাহমিদা লুনা।